পুলিশ সাংস্কৃতিক পরিষদের গান প্রতিযোগিতায় ছাতকের শরিফ সেরা


স্টাফ রিপোর্টার::
বাংলাদেশ পুলিশ সাংস্কৃতিক পরিষদ কর্তৃক গানের প্রতিযোগিতা সেরা শিল্পী নির্বাচিত হয়েছেন পুলিশ কনস্টেবল মো.শাহেদুল হক শরিফ। তিনি সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক থানায় পুলিশ কনস্টেবল পদে কর্মরত রয়েছেন। সিলেটের হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট থানার হোড়পাড়া গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নুরল হকের ছেলে তিনি। পুলিশের ওই প্রতিযোগিতায় সেরা শিল্পী নির্বাচিত হওয়ায় কনস্টেবল শরিফকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন থানার ওসি শেখ মো. নাজিম উদ্দিনসহ অন্য কর্মকর্তাবৃন্দ। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, রাজধানী ঢাকার রাজারবাগে ডিসেম্বরে শেষ সপ্তাহে আয়োজিত বাংলাদেশ পুলিশ সাংস্কৃতিক পরিষদের আয়োজনে ওই প্রতিযোগিতায় বিচারক মন্ডলী শরিফকে সেরা শিল্পী হিসেবে নির্বাচিত করেন। ওই প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহনকারী প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অধিকারী তিনজনকে আগামী পুলিশ সপ্তাহ উপলক্ষে বাংলাদেশ টেলিভিশনে (বিটিবি) গান পরিবেশনের সুযোগ দেওয়া হবে। জানা যায়, দীর্ঘ এক যুগ ধরে লোক সংগীতের গানের চর্চা করেছেন শরিফ। প্রায় ৮ বছর পূর্বে তিনি পুলিশ কনস্টেবল বল পদে যোগদান করেন। তার পরিবারের ৩ ভাই ৫ বোনের মধ্যে সে সবার ছোট। ২০১০ইং সালে শরিফ নিজ এলাকার সাবিহা চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করে পুলিশের চাকুরীতে যোগদান করেন। চাকুরীতে কর্মরত থেকেই ২০১৩ইং সালে চুনারুঘাট সরকারী কলেজ থেকে এইচএসসি ও ২০১৭ইং সালে হবিগঞ্জের বৃন্দাবন সরকারী কলেজ থেকে বিএসএস(ডিগ্রী) লাভ করেন। পর তার পড়া-লেখার পাশাপাশি তিনি গানের চর্চাটা গেছেন নিয়মিত। মা মোছা. সুরতুন নেছার উৎসাহ পেয়ে শরিফ গানের প্রতি জোকে পড়েন। এ বিষয়ে মো. শাহেদুল হক শরিফ জানান, সিলেটের সোবহানীঘাট এলাকার বকুলতলা সংগীত একাডেমীর ওংশমান দত্ত অঞ্জন এর কাছেই গানের মুল হাতেখড়ি। ২০১৪ই সাল থেকে তিনি নিয়মিতই গানের চর্চা করছেন। লোক সংগীত ও আধুনিক ফোক গানের প্রতি তার আকর্ষণ বেশী। বাউল স¤্রাট মরহুম আব্দুল করিমের ‘বন্ধুরে কই পাবো সখিগো’ সখি আমারে বলো না’ এই গান পরিবেশন করেই আমাকে সেরা শিল্পী নির্বাচিত করা হয়। সুনামগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার (ছাতক সার্কেল) মো. বিল্লাল হোসেন জানান, পুলিশ বাহিনীতে কাজ করেও নিয়মিত সংস্কৃতিক চর্চা একটি ইতিবাচক দিক। ছাতক থানায় কর্মরত কনস্টেবল শরিফের সাফল্য আমরা অর্জনে সকলেই আনন্দিত। তার জীবনের সার্বিক সফলতা কামনা করছি।