সুনামগঞ্জে ইফতারির জন্য স্ত্রীকে নির্যাতন


স্টাফ রিপোর্টার ::
ইফতারির জন্য স্ত্রীকে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। গত রোববার রাত ১১টার দিকে জামালগঞ্জ উপজেলার রূপাবালী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়, ২০২০ সালে জামালগঞ্জ উপজেলার সাচনাবাজার ইউনিয়নের রূপাবালী গ্রামের সাইকুল ইসলামের সঙ্গে বিয়ে হয় সদর উপজেলার গৌরারং ইউনিয়নের নিয়ামতপুর গ্রামের কুহিনুর বেগমের। বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে স্বামী সাইকুলসহ তার পরিবারের লোকজন গৃহবধূ কুহিনুরকে নির্যাতন করে আসছেন। গত রোববার শ্বশুরবাড়ির ইফতারি ও জামাকাপড় নিয়ে না আসায় গৃহবধূ কুহিনুরকে তার স্বামী সাইকুল অমানবিক নির্যাতন করে। এ সময় গৃহবধূ কুহিনুরের শরীরের বিভিন্ন অংশে জখমসহ তার দাঁত নড়ে ও ঠোঁট কেটে যায়। পরে স্বামীর বাড়ী থেকে পালিয়ে এসে পিত্রালয়ে আশ্রয় নেন। এ সময় তার ৫ মাস বয়সী শিশু কন্যাকে স্বামীর ঘরের লোকজন জোর করে আটকে দেয়। সন্তান ছাড়াই কুহিনুর কাঁদতে কাঁদতে পিত্রালয়ে দিন যাপন করছেন। তিনি সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। এবং আদালতে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। কুহিনুর বেগম বলেন, বিয়ের পর থেকেই স্বামী আমাকে যৌতুকের জন্য মারেন। এবার ইফতারের জন্য চাপ দেন। ইফতার না দিতে পারায় আমাকে বেধড়ক মারপিট করেছেন। আমার দুধের শিশুকেও তারা রেখে দিয়েছে। আমি অসহায়। আমি তার বিচার চাই।