দিরাই আসছেন পরিকল্পনামন্ত্রী, নাখোশ স্থানীয় আওয়ামী লীগ!


স্টাফ রিপোর্টার::
দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের যৌথ সভায় বক্তারা বলেছেন, প্রখ্যাত পার্লামেন্টিয়ান দিরাই-শাল্লা আসনের সাতবারের এমপি ও সাবেক মন্ত্রী প্রয়াত সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের এলাকায় কালো হাত বাড়িয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি। বক্তারা বলেন, প্রয়াত সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের সহধর্মিনী বর্তমান সাংসদ ড. জয়া সেনগুপ্তা ও আওয়ামী লীগকে পাশ কাটিয়ে, দলকে বাদ দিয়ে, দলবিরোধী, বহিস্কৃত, অব্যাহতিপ্রাপ্ত, কতিপয় দলছুট ও অনুপ্রবেশকারী এবং বিএনপির এজেন্ডা বাস্তবায়নকারীদের আহবানে পরিকল্পনামন্ত্রী ৩ অক্টোবর দিরাই সফরে আসছেন ঘোষণা দিয়ে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। এতে মনে হচ্ছে- মন্ত্রী উন্নয়নের পরিকল্পনা বাদ দিয়ে দলের ক্ষতি সাধনের পরিকল্পনা করছেন। সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলা আওয়ামী লীগ কর্যালয়ে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের যৌথসভায় বক্তব্যকালে বক্তরা এসব কথা বলেন। উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনয়ির সহসভাপতি অ্যাড. সোহেল আহমদের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ স¤পাদক প্রদীপ রায়ের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আলতাব উদ্দিন, সহসভাপতি সিরাজ-উদ দৌলা তালুকদার, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান তালুকদার, সাংগঠনিক স¤পাদক অ্যাড. অভিরাম তালুকদার, যুগ্ম-স¤পাদক লুৎফুর রহমান এওর মিয়া, জগদিশ সামন্ত, জেলা আওয়ামী লীগের পরিবেশ বিষয়ক স¤পাদক হুমায়ুন রশিদ লাভলু, রফিনগর উইনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ স¤পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান রেজুয়ান হোসেন খান, আবদুল মতিন, মিলন মিয়া, সিরাজুল ইসলাম,মকসদ আলম, ইকবাল সরদার, পারভেজ রহমান এবং উপজেলা, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ। সভাশেষে বেলা ২টার দিকে দলীয় কার্যালয়ে স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের উপস্থিতিতে সংবাদ সম্মেলন করে উপজেলা আওয়ামী লীগ। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাড. সোহেল আহমদ। বক্তব্য প্রদানকালে সোহেল আহমদ বলেন, আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কৃত মোশাররফ মিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রয়াত আছাব উদ্দিন সরদারের শোক সভা পালনের নামে ৩ অক্টোবর পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নানকে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন মর্মে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। উপজেলা আওয়ামীলীগকে পাশ কাটিয়ে বহিস্কৃত নেতার আহবানে আরেক সংসদীয় এলাকায় শোকসভায় আসা দলীয় শৃংখলা ও সংসদীয় শিষ্টাচারের পরপিন্থী। বিএনপি নেতাদের আহবানে আওয়ামী লীগের নাম ভাঙিয়ে শোকসভায় আসা এবং বীরদর্পে সরকারি প্রশাসনযন্ত্র ব্যবহার করে শোকসভার নামে শক্তি মহড়া প্রদর্শন করে আওয়ামী লীগকে দুর্বল করার একটি কৌশল। সংবাদ সম্মেলনে অ্যাড. সোহেল আহমদ আরও বলেন, ইতিপুর্বে পরিকল্পনামন্ত্রী স্থানীয় সাংসদ ড. জয়া সেনগুপ্তা ও জেলা-উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উপেক্ষা করে বিএনপির এজেন্ডা বাস্তবায়নকারী হিসেবে চিহ্নিত মিজানুর রহমান প্রমুখদের আহবানে জগদল ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালটি কার্যক্রম পুন:উদ্বোধন করেন। সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ স¤পাদক কর্তৃক বহিস্কৃত ও তৎকালীন সিলেট বিভাগের দাযিত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক স¤পাদক সাখাওয়াত হোসেন শফিক দিরাইয়ে প্রকাশ্য জনসভায় দলীয় শৃংখলা-ভঙের দায়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম স¤পাদক মোশাররফ মিয়াকে দলীয় কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি ঘোষণা করেন, যা পরিকল্পনামন্ত্রীসহ জেলার নেতৃবৃন্দ অবগত আছেন । অ্যাড. সোহেল আহমদ বলেন, মন্ত্রীর এমন আগমনে দিরাই আওয়ামী লীগে দ্বন্দ্ব-বিরোধ সৃষ্টি করবে। তিনি দলছুট নেতাদের পরামর্শে কাজ করছেন। যা বিএনপির গভীর ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নে কাজ করা হচ্ছে বলে মনে করেন জেলা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। এভাবে মন্ত্রীর আগমন ঘিরে জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগে ক্ষোভ ও নিন্দার ঝড় বইছে। মন্ত্রীর দলীয় শৃংখলা ভঙের বিষয়টি কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দকে অবহিত করা হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়। এছাড়াও মন্ত্রীর সফর বিষয়ে জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের পরামর্শে করণীয় নির্ধারণ করা হবে বলে জানান এড. সোহেল আহমদ।