ড্রিংকসের সাথে নেশাজাতীয় দ্রব্য মিশিয়ে চাচীকে ধর্ষণের চেষ্ঠা, ভাসুরের ছেলে গ্রেফতার


জগন্নাথপুর প্রতিনিধি::
জগন্নাথপুরে ড্রিংকসের সাথে নেশাজাতীয় দ্রব্যে মিশিয়ে পরিবারের লোকজনকে পান করিয়ে আপন চাচীকে ধর্ষণের চেষ্ঠার অভিযোগে পুলিশ শাহিন আহমদ ওরফে সুনু মিয়া (২৮) নামের এক যুবককে গ্রেফতার করে মঙ্গলবার জেল হাজতে পাঠিয়েছে। গ্রেফতারকৃত যুবক উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নের গড়গড়িয়া (শরিফপুর আইজলা) গ্রাামের মৃত আব্দুর রবের ছেলে। মামলার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মিরপুরের শরিফপুর আইজলাবাড়ীর এলাকার জনৈক গৃহবুধ বাড়ীতে বোরো জমিনে কাজ করার জন্য ওই গৃহবধুর ছোট বোনের স্বামী সুনামগঞ্জ সদরের মনপুর গ্রামের মৃত শফর আলী ছেলে জালাল মিয়া (৩০) কয়েকদিন আগে ওই নারীর বাড়িতে আসেন। গত শনিবার (১০ অক্টোবর) রাত ৮টার দিকে জালাল মিয়া এবং গৃহবধুর ভাসুরের ছেলে শাহিন আহমদ একটি কোল ড্রিংকস নিয়ে আসলে গৃহবধুর স্বামী ও তার আট বছরের ছেলে ড্রিংকস পান করে বসতঘরের অন্য একটি কক্ষে কিছুক্ষণ পর ঘুমিয়ে পড়েন। রাত দেড়টার দিকে শাহিন ও জালাল ওই বৃহবধুর শয়নকক্ষে প্রবেশ করে ওই নারীকে ধর্ষণের চেষ্ঠা চালায়। এসময় তাঁর শোর চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে লম্পট শাহিন ও জালাল পালিয়ে যায়। এঘটনায় ওই নারী গত সোমবার জগন্নাথপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পত্রে গৃহবধু উল্লেখ করেছেন, ওই রাতে তার স্বামী ও সন্তান ড্রিংক পান করলেও তিনি করেননি। কোল ড্রিংকসে নেশা জাতীয় দ্রব্য মিশানো হয়েছিল। জগন্নাথপুর থানার এএসআই মুক্তার আলী বলেন, ওই নারীর লিখিত অভিযোগের শাহিন আহমদকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামিকে ধরার চেষ্ঠা চলছি। এব্যাপারে ওই নারী বাদি হয়ে মামলা করেছেন।