জগন্নাথপুরে মেয়ে অপহরণ ও বাবাকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় জড়িত আসামীদেন রিমান্ড আবেদন


স্টাফ রিপোর্টার :
জগন্নাথপুরের চাঞ্চল্যকর বৃদ্ধ পিঠানো ও মেয়ে অপহরণ মামলার প্রধান আসামী শামিমকে ১০ দিন ও লিটন মিয়া (৪৫) ইলাক উদ্দিন (৩৩), আক্কা হোসেন (৩৫), শাহ আলম খান (২৮) কাজল মিয়া (৩৭) কে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জগন্নাথপুর থানার এসআই ফিরোজ । শনিবার বিকেলে জগন্নাথপুর আমল গ্রহণকারী আদালতের বিচারক শুভদীপ পালের আদালতে আসামীদের রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করা হয়। আজ রবিবার রিমান্ড শুনানী অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। উল্লেখ্য ৫ সেপ্টেম্বর রাতে জগন্নাথপুর থানার পাইলগাও ইউনিয়নের গুতগাও গ্রামের এক তরুনী বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাক্ষাণ করায় আসামীরা মেয়েটিকে অপহরণ করে। নির্যাতিতার বাবা এঘটনার প্রতিবাদ করলে তাকে আলীগঞ্জ বাজারের ভাড়াটে বাসা ধরে নিয়ে গিয়ে নির্মমম ভাবে পিটিয়ে আহত করে আসামিরা। এঘটনায় নির্যাতিতা জগন্নাথপুর থানায় ৬ জনকে আসামী করে নারী শিশু আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পরপর বিভিন্ন স্থান থেকে অভিযান চালিয়ে ৫ আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। মামলার প্রধান আসামী শামীম মিয়াকে জেলা ডিবি ওসি ইকবাল বাহারের নেতৃত্বে ডিবি পুলিশের একটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল থানার বেরাতলা এলাকার একটি চাতল মিল থেকে গ্রেফতার করে। আজ শামীকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। প্রধান আসামী শামীমের নামে হবিগঞ্জ নবীগঞ্জ থানা ও সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর থানায় ৫টি মামলা রয়েছে। ঘটনার ৪ দিন পর ডিবি পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে সুনামগঞ্জে নিয়ে আসে। মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই ফিরোজ মিয়া বলেন, জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শুভদীপ পালের আদালতে আসামীদের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছ। রিমান্ড এখনো মঞ্জুর হয়নি। আজ রিমান্ড শুনানী হবে।