রানীগঞ্জ বাজারে অবশেষে ড্রেইনের কাজ শুরু: জনমনে স্বস্তি


জগন্নাথপুর প্রতিনিধি::
জগন্নাথপুরের মুক্তিযোদ্ধের স্মৃতি বিজরিত ঐতিহ্যবাহী প্রাচিন রানীগঞ্জ বাজারে অবশেষে ড্রেইনের কাজ শুরু হয়েছে। কাজ শুরু হওয়ায় জনমনে স্বস্তি দেখা দিয়েছে। দীর্ঘদিন পর কাজ শুরু হলেও বাজারবাসী দূর্ভোগ থেকে রক্ষা পাবে। বুধবার বিকালে রানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম রানা, রানীগঞ্জ বাজার ওয়ার্ডের মেম্বার মো. ইছরাক আলী, ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য তেরা মিয়া তেরাব, রানীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সামাদ, রানীগঞ্জ বাজার সেক্রেটারী আজমল হোসেন মিটু, বাজার ব্যবসায়ী মন্তুস দেব মলয়, জিয়াউর রহমান, সাংবাদিক গোলাম সারোয়ার সহ বাজারের ব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন। বাজারবাসীর সাথে আলাপ করে জানা যায়, কুশিয়ারা নদীর নাব্যতা হারানো পর প্রত্যেক বছর বর্ষা মৌসুমে কাচা মাল হাটা থেকে শুরু করে বাজারের নিন্মাঞ্চল পানিতে সয়লাব হয়ে যেত। সমস্যা পড়তেন বাজারের আসা ক্রেতা সহ বাজারের ব্যবসায়ীগন। বহু অপেক্ষার-প্রতিক্ষার পর আমরা সেই সুদিন পেলাম এখন আর ড্রেইন সমস্যা নিয়ে আর চিন্তা করা লাগবেনা। বাজারবাসীর দাবী করে বলেন, প্রথমেই একটি নান্দনিক পরিবেশ বান্ধব সৃজনশীল বাজার পরিকল্পনা নেয়া যেখানে বাজারের স্ব স্ব ক্ষেত্রে প্রাজ্ঞদের মতামত গুলো শুনা এবং বিবেচনার সুযোগটি থাকা খুবই জরুরী। যাতে করে অদূর ভবিষ্যতে ক্ষমতার পট পরিবর্তন হলেও পরিকল্পিত কাজের একটা দৃশ্যমান ধারাবাহিকতা বজায় থাকার মতো দূরপ্রসারী মহৎ কাজটির শক্ত ভীত রচিত হতে পারে। অতীতে অনেক ছোট কাজই ক্ষমতার দ্বন্দ এবং ব্যক্তিগত সমস্যায় আমরা বঞ্চিত হয়েছি। এ ব্যাপারে জানতে রানীগঞ্জ বাজার কমিটির সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম রানা বলেন, বাজারবাসীর দীর্ঘ দিনের দাবি ছিল পূর্ব বাজারের ড্রেইন নিমার্ণ করা। বহু সমস্যা থাকার পরও ড্রেইনের কাজ শুরু করছি। আসা করি অল্প দিনের মধ্যে কাজটি সম্পন্ন হবে। বাজারবাসী আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ জানাই। বহু দিন কষ্ট করে চলাচল করতে হয়েছে।