দৈনিক সুনামকণ্ঠ’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন


স্টাফ রিপোর্টার::
গতকাল পহেলা জানুয়ারি ২০২১ইং ছিল সুনামগঞ্জের দৈনিক সুনামকণ্ঠ’র ৭ম বর্ষে পদার্পণ। প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন উপলক্ষে দৈনিক সুনামকণ্ঠ কার্যালয় মিলনায়তনে আয়োজন করা হয় কেক কাটা ও আলোচনা সভার। দৈনিক সুনামকণ্ঠ পত্রিকার সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. জিয়াউল হকের সভাপতিত্বে এবং সম্পাদক ও প্রকাশক বিজন সেন রায়ের সঞ্চালনায় আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ। তিনি বলেন, সুনামগঞ্জে আমার ব্যতিক্রম অবস্থান তৈরি করার পেছনে যাদের অবদান তারা হচ্ছেন সাংবাদিক এবং সংবাদপত্র। সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠে প্রতিটি পত্রিকা দেখে দিনের কার্যক্রম শুরু করতাম। রাতেও অনলাইন পত্রিকাগুলো দেখে নিতাম। সংবাদপত্র এবং সাংবাদিকবৃন্দ আমার কার্যক্রমে যথেষ্ট সহযোগিতা করেছেন। আমি সুনামগঞ্জ থেকে চলে যাবো কিন্তু সাংবাদিকদের কথা ভূলতে পারবো না। করোনাকালে, ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণে, বন্যার সময়, ধান কাটার সময় সাংবাদিকবৃন্দ কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আমার সাথে কাজ করেছেন। আমি তাদের ঋণ ভুলতে পারব না। সাংবাদিকবৃন্দ সরকারি কাজের সমালোচনা করলে আমি খুশি হতাম। আনন্দিত হতাম। কারন এতে সংশোধনের পথরেখা খুঁজে পেতাম। প্রতিবন্দ্বীদের জন্য একটি ভবন নির্মাণ করে দিয়ে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. জিয়াউল হক যথেষ্ট সুনাম অর্জন করেছেন। আমি তাঁর দীর্ঘজীবন ও সুস্বাস্থ্য কামনা করছি। নুতুন জেলা প্রশাসক যিনি আসবেন তাঁকে আমার মতো সহযোগিতা করার আহ্বান জানিয়ে এবং দৈনিক সুনামকণ্ঠর সার্বিক সফলতা কামনা করে তিনি সবাইকে ধন্যবাদ জানান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল হুদা মুকুট উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা সাদাকে সাদা বলবেন এবং কালকে কাল বলে সংবাদ লিখবেন। আমি শুনেছি আগামী ইউনিয়ন নির্বাচনকে সামনে রেখে নাকি মনোনয়ন বাণিজ্য শুরু হয়েছে। এসব দুর্নীতির বিরুদ্ধে আপনারা সোচ্চার থেকে লেখালিখি করবেন। মনোনয়ন বাণিজ্য যেন কোনভাবেই হতে না পারে সে ব্যাপারে সজাগ দৃষ্টি রাখবেন। সত্যকে সত্য এবং মিথ্যাকে মিথ্যা বলে সাংবাদিকতা করে যাবেন। আলোচনা অনুষ্ঠাানে অতিথিদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. জসিম উদ্দিন, সাবেক অধ্যক্ষ পরিমল কান্তি দে, লেখক ও কলামিষ্ট হোসেন তওফিক চৌধুরী ও অধ্যক্ষ শেরগুল আহমেদ। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন লেখক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মো.আবু সুফিয়ান, লেখক সুখেন্দু সেন, তাহিরপুর উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক অমল কান্তি কর, সাংবাদিক খলিল রহমান প্রমুখ। এর আগে অতিথিদের সম্মাননা ক্রেস্ট ও ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। সবশেষে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কেক কাটেন অতিথিবৃন্দ। এসময় অন্যান্য অতিথিবৃন্দ সহ জেলায় কর্মরত প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।